বাংলাদেশ ৩ উইকেট হারিয়ে মধ্যাহ্ন বিরতিতে

23

মধ্যাহ্ন বিরতিতে যাওয়ার আগেই হারিয়েছে ৩ উইকেট। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টে টসে জিতে ব্যাট করতে নেমেছে বাংলাদেশ। তবে স্কোর বোর্ডে জমা পড়েছে ৭০ রান। ব্যাট হাতে ৫২ বলে ৩২ রান করে অপরাজিত আছেন অধিনায়ক মুমিনুল হক সৌরভ। । তাকে সঙ্গ দিচ্ছেন দলের অন্যতম সেরা ব্যাটিং ভরসা মুশিফিকুর রহীম। ১৪ বলে ১ রান এসেছে তার ব্যাট থেকে। ২৩ ওভার শেষে টাইগারদের সংগ্রহ ৭০/৩। এর আগে বাংলাদেশের ইনিংসের প্রথম ওভারের পঞ্চম বলেই আউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন তরুণ ওপেনার সাইফ হাসান। তামিম ইকবাল ইনজুরির কারণে একাদশে সুযোগ হয়েছে তার। মুজারাবানির বলে আউট হওয়ার আগে এই তরুণ নিজের নামের পাশে যোগ করতে পারেননি একটি রানও। বেশিক্ষণ টিকে থাকতে পারেননি নাজমুল হোসেন শান্তও। মায়ার্সের বলে তিনি ফিরে যান ২ রান করেই। ৫ ওভার শেষে দলের সংগ্রহ দাঁড়ায় হারিয়ে ৮/২-এ । সেখান থেকে অধিনায়কের সঙ্গে লড়াই শুরু করেন ওপেনার সাদমান ইসলাম অনিক। দলের বিপর্যয়ে দুজন ১০০ বল খেলে গড়ে তোলেন ৬০ রানের জুটি। কিন্তু মধ্যাহ্ন বিরতির দুই ওভার আগেই হাল ছাড়েন সাদমানও। ৬৪ বলে ২৩ রান করে তিনিও ফিরে যান নাগারাভার বলে টেইলরের হাতে ক্যাচ দিয়ে।
সিরিজের একমাত্র টেস্টে র‌্যাঙ্কিংয়ের তলানির দল জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেও টাইগাররা বেছে নিয়েছে ৮ জন বিশেষজ্ঞ ব্যাটসম্যান। স্কোয়াড ঘোষণার কয়েকদিন পর নাটকীয়ভাবে দলে আসা মাহমুদউল্লাহ জায়গা পান একাদশে। অভিজ্ঞ এই ক্রিকেটার সর্বশেষ টেস্ট খেলেছিলেন গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে পাকিস্তানের বিপক্ষে। হতাশাজনক ফর্মের ধারাবাহিকতায় রাওয়ালপিন্ডিতে ওই টেস্টে হ্যাটট্রিক বলে বাজে শট খেলে আউট হওয়ার পর দল থেকে বাদ পড়েছিলেন তিনি। তবে ৯ ব্যাটসম্যান একাদশ সাজানোতে শুরু হয়েছে দারুণ সমালোচনা। কারণ টেস্ট জিততে হলে প্রয়োজন প্রতিপক্ষের ২০ উইকেট। সেখানে বাংলাদেশ দল দুই জন স্পেশালিস্ট পেসার তাসকিন ও ইাবাদত হোসেনকে একাদশে রেখেছেন। স্পেশালিষ্ট স্পিনার বলতে মেহেদী হাসান মিরাজ। অলরাউন্ডার হিসেবে সাকিব ও মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ থাকলেও তাদের তো আর স্পেশালিষ্ট বলা যায় না। মানে জিম্বাবুয়ের ব্যাটসম্যান রুখে দিতে টাইগার একাদশে মূল বোলার মাত্র ৩ জন।
এছাড়াও জিম্বাবুয়ের হয়ে নিয়মিত অধিনায়ক শন উইলিয়ামস ও অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান ক্রেইগ আরভিনের খেলা অনিশ্চিত ছিল আগে থেকেই। কোভিড আক্রান্ত পরিজনের সংস্পর্শে আসায় আইসোলেশনে আছেন দুজন। তাদের হয়ে টেস্ট ক্যাপ পাচ্ছেন দুই ক্রিকেটার, ব্যাটসম্যান টাকুদজয়নাশে কাইটানো ও অলরাউন্ডার ডিওন মায়ার্স।
বাংলাদেশ একাদশ:
সাইফ হাসান, সাদমান ইসলাম, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুমিনুল হক (অধিনায়ক), মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ, লিটন দাস, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাসকিন আহমেদ, ইবাদত হোসেন চৌধুরী।
জিম্বাবুয়ে একাদশ:
টাকুদজয়নাশে কাইটানো, রয় কাইয়া, রেজিস চাকাভা, ব্রেন্ডন টেইলর (অধিনায়ক), টিমাইসেন মারুমা, ডিওন মায়ার্স, মিল্টন শুম্বা, ডোনাল্ড টিরিপানো, ভিক্টর নিয়াউচি, রিচার্ড এনগারাভা, ব্লেসিং মুজারাবানি।