ব্রেকিং নিউজ
Home / আর্ন্তজাতিক / মৃত তিন লাখ ৯৩ হাজার, আক্রান্ত ৬৭ লাখ

মৃত তিন লাখ ৯৩ হাজার, আক্রান্ত ৬৭ লাখ

বিশ্ব করোনাভাইরাস মহামারিতে বিপর্যস্ত। এর মধ্যে কয়েকটি দেশে এর প্রকোপ ভয়ংকর রূপ নিয়েছে। বৃহস্পতিবার একদিনে বিশ্বে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এক লাখ ৩০ হাজারের বেশি মানুষ, মৃত্যু হয়েছে ৫৪৯৯ জনের। এ তথ্য জানিয়েছে করোনাভাইরাস নিয়ে লাইভ আপডেট দেয়া ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটার।

শুক্রবার সকাল পর্যন্ত করোনায় বিশ্বব্যাপী নিহতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে তিন লাখ ৯৩ হাজার ১৪২ জনে এবং আক্রান্তের সংখ্যা ৬৬ লাখ ৯৮ হাজার ৩৭০ জন। অপরদিকে ৩২ লাখ ৪৪ হাজার ৫৭৪ জন চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীন থেকে এই মহামারি শুরু হলেও ইউরোপ এবং যুক্তরাষ্ট্রে তাণ্ডব চালিয়েছে করোনাভাইরাস। এখন এর কেন্দ্রবিন্দু হয়ে উঠছে রাশিয়া, ব্রাজিল ও ব্রিটেন। আক্রান্ত ও নিহতের সংখ্যায় সবার ওপরে রয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। সেখানে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১৯ লাখ ২৪ হাজার ৫১ জন এবং মৃত্যু হয়েছে এক লাখ ১০ হাজার ১৭৩ জনের। সুস্থ হয়েছেন ৭ লাখ ১২ হাজার ২৫২ জন।

আক্রান্তের দিক দিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে চলে এসেছে ব্রাজিল। সেখানে এখন পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ৬ লাখ ১৫ হাজার ৮৭০ জন, মৃত্যু হয়েছে ৩৪ হাজার ৩৯ জনের। রাশিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪ লাখ ৪১ হাজার ১০৮ জন, মৃত্যু হয়েছে ৫৩৮৪ জনের। স্পেনে আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ৮৭ হাজার ৭৪০ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ২৭ হাজার ১৩৩ জনের।

মৃত্যুর দিক দিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ব্রিটেন। দেশটিতে এখন পর্যন্ত নিহত হয়েছেন ৩৯ হাজার ৯০৪ জন, আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ৮১ হাজার ৬৬১ জন। এছাড়া ইতালিতে নিহত হয়েছেন ৩৩ হাজার ৬৮৯ জন।

চীনের উহান থেকে বিস্তার শুরু করে গত ছয় মাসে বিশ্বব্যাপী মহামারি রূপ নিয়েছে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯)।করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাব নিয়ন্ত্রণে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে নেয়া হয়েছে সতর্কতামূলক পদক্ষেপ। অধিকাংশ দেশেই মানুষের মধ্যে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা নিশ্চিত করতে মানুষের চলাফেরার ওপর বিভিন্ন মাত্রায় নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে কর্তৃপক্ষ।

কোনো কোনো দেশে আরোপ করা হয়েছে সম্পূর্ণ লকডাউন, কোথাও কোথাও আংশিকভাবে চলছে মানুষের দৈনন্দিন কার্যক্রম। এ ধরনের পদক্ষেপ নেয়ার কারণে পৃথিবীর বিভিন্ন এলাকার প্রায় অর্ধেক মানুষ চলাফেরার ক্ষেত্রে কোনো না কোনো মাত্রায় নিষেধাজ্ঞার ওপর পড়েছেন। তবে এরই মধ্যে কোনো কোনো দেশে করোনার প্রভাব কমে যাওয়া লকডাউন শিথিল ও নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে।

করোনাভাইরাস মূলত শ্বাসতন্ত্রে সংক্রমণ ঘটায়। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ভালো হলে এ রোগ কিছুদিন পর এমনিতেই সেরে যেতে পারে। তবে ডায়াবেটিস, কিডনি, হৃদযন্ত্র বা ফুসফুসের পুরোনো রোগীদের ক্ষেত্রে ডেকে আনতে পারে মৃত্যু।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

%d bloggers like this: