ম্যানসিটি লিভারপুলকে উড়িয়ে আরো উঁচুতে

51

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড আগের দিন শেষ সেকেন্ডের গোলে পয়েন্ট খুইয়েছে। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের পয়েন্ট হারানোর সুযোগ কাজে লাগিয়ে শীর্ষস্থান আরো মজবুত করলো ম্যানচেস্টার সিটি। রোববার রাতে লিভারপুলকে তাদেরই মাঠে ৪-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে পেপ গার্দিওলার দল। প্রায় ১৮ বছর পর লীগ ম্যাচে অ্যানফিল্ডে জয়ের স্বাদ পেলো সিটিজেনরা। অ্যানফিল্ড দুর্গে শেষবার ম্যানসিটির কাছে লিভারপুল হেরেছিল ২০০৩ সালের মে’তে। এই হারে লজ্জার রেকর্ড গড়েছে লিভারপুল। ১৯৬৩ সালের পর ঘরের মাঠে টানা তিন লীগ ম্যাচ হারলো অলরেডরা।

৩৭তম মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল করতে ব্যর্থ হন সিটি মিডফিল্ডার ইলকাই গিনদোয়ান। জার্মান তারকা ভুলের প্রায়শিত্ত করেন জোড়া গোলে।

৪৯ ও ৭৩ মিনিটে দুই গোল করে এগিয়ে দেন সিটিজেনদের। মাঝে ৬৩ মিনিটে পেনাল্টি থেকে এক গোল শোধ দেন মোহাম্মদ সালাহ। ৭৬ মিনিটে রাহিম স্টার্লিং তার সাবেক ক্লাবের বিপক্ষে গোল করলে জয় প্রায় নিশ্চিত হয়ে যায় সিটির। ৮৩ মিনিটে ফিল ফোডেনের গোলে বড় জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে ম্যানচেস্টারের আকাশী-নীলরা। লিভারপুলের এমন হারের দায়টা বেশি ব্রাজিলিয়ান গোলরক্ষক আলিসন বেকারের। ৭৩ ও ৭৬ মিনিটে সিটিজেনরা দুই গোল পেয়েছে ডিবক্সে আলিসন প্রতিপক্ষের পায়ে বল তুলে দেয়ায়।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগে টানা ১০ ম্যাচ জিতলো ম্যানচেস্টার সিটি। সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে টানা ১৪ জয় সিটিজেনদের। যা ইংলিশ ফুটবল ইতিহাসের সর্বোচ্চ। ইংলিশ শীর্ষ ফুটবলের আসগুলোতে টানা ১৪ জয়ের রেকর্ড রয়েছে প্রেস্টন নর্থ এন্ড ও আর্সেনালের। ১৮৯২ সালে প্রেস্টন এবং ১৯৮৭ সালে এই রেকর্ড গড়ে আর্সেনাল।

২২ ম্যাচে ম্যানসিটির সংগ্রহ ৫০ পয়েন্ট। এক ম্যাচ বেশি খেলে ৪৫ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে ম্যানইউ। ২৩ ম্যাচে ৪০ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থ স্থানে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন লিভারপুল।