যান চলা বন্ধ নীলক্ষেত মোড়ে সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা

62

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা চলমান পরীক্ষা স্থগিতের প্রতিবাদসহ কয়েকটি দাবিতে নীলক্ষেত মোড়ে বিক্ষোভ করছে । বুধবার সকাল থেকে নীলক্ষেত মোড়ে অবস্থান নিয়েছে তারা। এতে ওই সড়ক ও এর আশপাশের রাস্তায় যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।

শিক্ষার্থীরা বলছেন, তাদের দাবি একটাই চলমান পরীক্ষার উপর স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করে পরীক্ষা নিতে হবে।

এক শিক্ষার্থী বলেন, তারা কারো বিরুদ্ধে আন্দোলন করছে না। পরীক্ষা নেয়ার জন্য আন্দোলন করছে। পরীক্ষা শুরু হয়েছিল সেটি চলমান থাকুক এটিই আমরা চাই।

সাত কলেজের ২০১৯ সালের স্নাতক চতুর্থ বর্ষ, ২০১৯ সালের স্নাতক তৃতীয় বর্ষের লিখিত পরীক্ষা এবং ২০১৭ সালের মাস্টার্স শেষ পর্বের মৌখিক পরীক্ষা চলমান রয়েছে বলে জানান তারা। এ ছাড়া পূর্বঘোষিত পরীক্ষার সময়সূচি অনুযায়ী ২৮ ফেব্রুয়ারি থেকে ডিগ্রি তৃতীয় বর্ষ ও ১০ মার্চ থেকে স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষের (বিশেষ) পরীক্ষা শুরু হওয়ার কথা ছিল। গতকাল এক বৈঠকে এসব পরীক্ষা স্থগিতের সিদ্ধান্ত নেয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

এর আগে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নীলক্ষেত মোড়ে প্রথমে মানববন্ধন করেন শিক্ষার্থীরা। এরপর তারা নীলক্ষেত মোড়ে অবস্থান নেন। রাত ১০টা পর্যন্ত তারা নীলক্ষেত মোড়ে অবস্থান নিয়েছিলেন। এ সময় তারা পরীক্ষা গ্রহণের দাবিতে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে এবং স্লোগান দেয়।

পরীক্ষা স্থগিত করার বিষয়ে সাত কলেজের শিক্ষা কার্যক্রম তদারকির দায়িত্বপ্রাপ্ত (ফোকাল পয়েন্ট) ঢাকা কলেজের অধ্যক্ষ আই কে সেলিম উল্লাহ খোন্দকার মঙ্গলবার বলেন, ‘শিক্ষামন্ত্রীর ঘোষণায় আমরা আলোচনা করে পরীক্ষা স্থগিতের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সাত কলেজের একাধিক বর্ষের ফাইনাল পরীক্ষার রুটিন প্রকাশ করা হয়েছিল। সেগুলো ২৪ মে পর্যন্ত স্থগিত থাকবে। নতুন করে আবার পরীক্ষার রুটিন প্রকাশ করা হবে।’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত রাজধানীর সাত কলেজের প্রধান সমন্বয়ক অধ্যাপক এ এস এস মাকসুদ কামাল বলেন, ‘সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আমরা সাত কলেজের অধ্যক্ষদের সঙ্গে সভা করেছি। তাদের পরামর্শে আমরা সব ধরনের পরীক্ষা স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আগামী ২৪ মে থেকে ক্রম অনুযায়ী পরীক্ষা গ্রহণ করা হবে। এর আগে যেসব পরীক্ষার রুটিন প্রকাশ করা হয়েছিল। সেসব পরীক্ষাও ২৪ মে পর্যন্ত স্থগিত করা হয়েছে।’