Home / আর্ন্তজাতিক / রিপাবলিকান সিনেটররা ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ভোট দিলেন

রিপাবলিকান সিনেটররা ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ভোট দিলেন

রিপাবলিকান নিয়ন্ত্রিত সিনেট ক্ষমতা থেকে বিদায় নেয়ার মাত্র কয়েকদিন আগে প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে তার দল । তার ক্ষমতার মেয়াদে প্রথমবারের মতো তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে গিয়ে রিপাবলিকান নিয়ন্ত্রিত সিনেট তার ভেটো দেয়া প্রতিরক্ষা বিষয়ক ন্যাশনাল ডিফেন্স অথরাইজেশন অ্যাক্টের (এনডিএএ) পক্ষে ভোট দিয়েছেন। ফলে ট্রাম্পের ভেটো এখন আর কোনো কাজে আসবে না। শুক্রবার নতুন বর্ষের প্রথম অধিবেশনে বিলটির পক্ষে ভোট দেন ৮১ জন সিনেটর। বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন মাত্র ১৩ জন। প্রেসিডেন্টের ভেটো কাটিয়ে উঠতে কংগ্রেসের প্রতিনিধি পরিষদ এবং সিনেট উভয় কক্ষে দুই-তৃতীয়াংশ ভোট প্রয়োজন। প্রতিনিধি পরিষদে বিলটি পাস হওয়ার পর তা সিনেটেও পাস হলো। নতুন কংগ্রেসের শপথের মাত্র দু’দিন আগে এ ঘটনা ঘটেছে।

এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি।

উল্লেখ্য ৭৪০০০ কোটি ডলারর এনডিএএ বিলটিতে পাস হয়েছে প্রতিরক্ষা নীতির অধীনে। এই বিলের কিছু সুনির্দিষ্ট বিধানের বিষয়ে আপত্তি জানিয়েছেন ট্রাম্প। এই বিলে আফগানিস্তান ও ইউরোপ থেকে সেনাবাহিনী প্রত্যাহার সীমিত করা হবে। সামরিক বাহিনীর ঘাঁটিগুলো থেকে কনফেডারেট নেতাদের নাম প্রত্যাহার করা হবে। এসব ইস্যুতে এর বিরোধিতা করেছেন ট্রাম্প। এ ছাড়া সামাজিক মিডিয়া বিষয়ক কোম্পানির অংশ তিনি বাদ দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। বিলটি নিয়ে বিতর্ক শুরুর পর রিপাবলিকান দলের সিনেট নেতা ও ট্রাম্পের ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত মিশ ম্যাকলেন বলেন, বিলটি পাসের বিষয়ে তিনি নিশ্চিত। তিনি আরো বলেন, একটানা ৫৯ বছর ধরে আমরা এ বিল পাস করে আসছি। যেকোনোভাবেই হোক আমরা এনডিএএ পাস করতে যাচ্ছি। রোববার এই কংগ্রেসের সমাপ্তি। তার আগে আমরা এটাকে আইনে পরিণত করতে যাচ্ছি।

এরপরেই প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প টুইটে বলেছেন, সেকশন ২৩০ থেকে মুক্ত হওয়ার সুযোগ হাতছাড়া করলো আমাদের রিপাবলিকান সিনেট। এই সেকশনের অধীনে বড় প্রযুক্তিবিষয়ক কোম্পানিকে অসীম ক্ষমতা দেয়া হয়েছে। হৃদয়বিদারক।

কংগ্রেসে পাস হওয়া কোনো বিলকে আইনে পরিণত করতে হলে তাতে প্রেসিডেন্টের স্বাক্ষর প্রয়োজন হয়। বিরল ক্ষেত্রে প্রেসিডেন্ট ভেটো দিতে পারেন, নীতিতে কোনো বিষয়ে অমতের কারণে। কিন্তু প্রেসিডেন্টের সেই ভেটোকে অতিক্রম করতে সদস্যরা বিলটি তাজা রাখতে পারেন এবং আইনে পরিণত করতে পারেন। তবে ক্ষেত্রে প্রতিনিধি পরিষদে এবং সিনেটে বিলের পক্ষে দুই তৃতীয়াংশ ভোট পড়তে হবে। সেই ঘটনাই ঘটেছে মার্কিন কংগ্রেসে। বিল পাসের পর কংগ্রেসে সবচেয়ে শক্তিধর ডেমোক্রেট প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি বলেছেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ভেটো ছিল আমাদের সেনাবাহিনীর জন্য ক্ষতিকর। এতে আমাদের নিরাপত্তা বিপদগ্রস্ত হতো। দ্বিপক্ষীয় কংগ্রেসকে খর্ব করা হতো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

%d bloggers like this: