শুরু চট্টগ্রাম থেকেই প্রধানমন্ত্রীর দেশব্যাপী বিভাগীয় সমাবেশ

20

দেশব্যাপী বিভাগীয় সমাবেশ শুরু হচ্ছে চট্টগ্রাম থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার । আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে তৃণমূলের নেতাকর্মীদের উজ্জীবিত করতে আগামী ৪ ডিসেম্বর তিনি পলোগ্রাউন্ডের মহাসমাবেশে ভাষণ দেবেন। এখান থেকেই দেশব্যাপী বিভাগীয় মহাসমাবেশ শুরু করতে যাচ্ছেন তিনি। করোনা মহামারির কারণে গত আড়াই বছর প্রধানমন্ত্রী ঢাকা ও ঢাকার বাইরে কোনো জনসভায় উপস্থিত হননি। ঢাকার বাইরে চট্টগ্রামেই প্রথম দলীয় জনসভায় বক্তব্য দেবেন।
আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি গতকাল সিআরবির সমাবেশে বলেছেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী পলোগ্রাউন্ড থেকে জনসভা শুরু করবেন। এই জনসভাকে লোকে লোকারণ্য করব, যাতে পলোগ্রাউন্ড উপচে পড়ে। করোনা পরবর্তী সময়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দলীয় জনসভায় প্রথম চট্টগ্রাম আসছেন। এই কারণে এই জনসভাকে স্মরণকালের সর্ববৃহৎ জনসভায় পরিণত করা হবে।

আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া আজাদীকে জানান, আগামী ৪ ডিসেম্বর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ভাটিয়ারীতে একটি অনুষ্ঠানে যাবেন। সেখান থেকে বিকালে পলোগ্রাউন্ডে জনসভায় যোগ দেয়ার পরিকল্পনা রয়েছে। ৭ ডিসেম্বর নেভির একটি অনুষ্ঠানে যাবেন। সেখান থেকে কক্সবাজারে একটি জনসভায় যোগ দেয়ার পরিকল্পনা রয়েছে। এরপর ২৪ তারিখ যশোর যাওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে।

এদিকে মহানগর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় পলোগ্রাউন্ড মাঠে ৪ ডিসেম্বরের জনসভাকে জনসমুদ্রে পরিণত করতে নগরীর প্রতিটি ইউনিট, ওয়ার্ড ও থানা, প্রতিটি অলি-গলি, পাড়া-মহল্লায় ব্যাপক হারে প্রচারণা চালানোর নির্দেশনা দিয়েছেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীন। তিনি বলেন, ১০ বছর পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এই সফর ঘিরে চট্টগ্রামে আনন্দের বন্যা বইছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা চট্টগ্রাম আসবেন এবং জাতিকে সুবার্তা দেবেন। প্রতিটি নেতাকর্মীকে নিজ নিজ এলাকায় প্রচার-প্রচারণার অংশ হিসেবে মিছিল-মিটিং ও জনসভা শুরু করার জন্য বলা হয়েছে।

পলোগ্রাউন্ড মাঠে আওয়ামী লীগের জনসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেবেন প্রধানমন্ত্রী। এর আগে ২০১২ সালের ২৮ মার্চ পলোগ্রাউন্ডে আওয়ামী লীগসহ ১৪ দলের মহাসমাবেশে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। ওই সমাবেশ থেকে তিনি হাটহাজারী, দোহাজারী ও পটিয়ায় ৩টি বিদ্যুৎ কেন্দ্র উদ্বোধন করেছিলেন। এছাড়া বন্দর এলাকায় নির্মিত ফ্লাইওভার উদ্বোধন করেন।

উল্লেখ্য, চলতি মাসের ১২ অক্টোবর পলোগ্রাউন্ড মাঠে বিএনপি বিভাগীয় মহাসমাবেশ করেছে। এই মহাসমাবেশের প্রায় ২ মাসের মধ্যে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ ওখানে জনসভা করতে যাচ্ছে।