শেখ হাসিনা সন্তুষ্ট নন মেয়র জাহাঙ্গীরের জবাবে

40

প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে গাজীপুর সিটি মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের বিতর্কিত বক্তব্যের ব্যাখ্যায় সন্তুষ্ট নন । আগামী ১৯ নভেম্বর দলের কার্যনির্বাহী কমিটির বৈঠকে এ নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে। গতকাল শুক্রবার দলের স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ডের বৈঠকে এমন বার্তা দেওয়া হয়। জাহাঙ্গীর আলম গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগেরও সাধারণ সম্পাদক।

বৈঠকে উপস্থিত একাধিক সদস্য জানান, বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে মেয়র জাহাঙ্গীরের যে আপত্তিকর ভিডিও এবং অডিও বক্তব্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়েছে, তা দলের দৃষ্টিতে আসে। এরপর গত ৩ অক্টোবর দল থেকে জাহাঙ্গীর আলমকে ১৫ দিনের মধ্যে কারণ দর্শাতে চিঠি দেওয়া হয়। নির্ধারিত সময়েই জাহাঙ্গীর আলম চিঠির জবাব দেন। কিন্তু চিঠিতে মেয়র জাহাঙ্গীর ওই মন্তব্যের কারণ হিসেবে যে জবাব দিয়েছেন তাতে দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনা অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন। গতকালের বৈঠকে শেখ হাসিনা বলেন, আওয়ামী লীগের কোনো নেতাএমন বক্তব্য দিতে পারেন না; এটা অপ্রত্যাশিত। শুধু আওয়ামী লীগ নেতা কেন, দলের বাইরের কোনো ব্যক্তিও এমন বক্তব্য দেবেন বলে আমি মনে করি না। এ নিয়ে দলের ভেতরে-বাইরে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। তাই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে দলের কার্যনির্বাহী সংসদে আলোচনা করা উচিত। তিনি জানান, জাহাঙ্গীরের বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে আগামী ১৯ নভেম্বর দলের কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠক ডাকা হয়েছে। সেখানে তার কারণ দর্শানোর জবাবের পর্যালোচনা করা হবে। ওইদিনই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে জাহাঙ্গীরের বিষয়ে।প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে অনুষ্ঠিত গতকালের বৈঠকে আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের সদস্যদের মধ্যে আমির হোসেন আমু, ওবায়দুল কাদের, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ, কাজী জাফরউল্লাহ, ড. আবদুর রাজ্জাক, লেফটেন্যান্ট কর্নেল (অব) মুহাম্মদ ফারুক খান, রমেশচন্দ্র সেন, অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক, আবদুর রহমান, রশিদুল আলম, ড. আবদুস সোবহান গোলাপ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এ সময় তৃতীয় ধাপে অনুষ্ঠেয় এক হাজার সাতটি ইউনিয়ন পরিষদের মধ্যে খুলনা ও বরিশাল বিভাগের ইউনিয়ন পরিষদগুলোর চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রার্থী মনোনয়ন বিষয়ে আলোচনা হয়। উল্লেখযোগ্য সংখ্যক প্রার্থীর নামও চূড়ান্ত করা হয়েছে। বৈঠক শেষে খুলনা ও বরিশাল বিভাগের স্থানীয় সরকার নির্বাচনে মনোনয়ন প্রাপ্তদের নাম প্রকাশ করা হয়। আজ শনিবার বিকালে গণভবনে মনোনয়ন বোর্ডের তৃতীয় দিনের বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে।

সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তৃতীয় ধাপের খুলনা ও বরিশাল বিভাগের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে মনোনীত প্রার্থীদের নামের তালিকা চূড়ান্ত করা হয়-

খুলনা বিভাগ : মেহেরপুরে সদর উপজেলার কুতুবপুরে ইদ্রিস আলী এবং বুড়িপোতায় নৌকার মনোনয়ন পেয়েছেন শাহ্ জামান। গাংনী উপজেলার কাজীপুরে মনোনয়ন পেয়েছেন রেজাউল হক, ষোলটাকায় দেলবার হোসেন, ধানখোলায় আবদুর রাজ্জাক এবং রায়পুরে গোলাম সাকলায়েন। কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার প্রাগপুরে নৌকার মাঝি হয়েছেন আশরাফুজ্জামান, খাস মথুরাপুরে সর্দ্দার হাশিম উদ্দিন, ফিলিপনগরে একেএম ফজলুল হক, মরিচায় শাহ্ আলমগীর, রামকৃষ্ণপুরে সিরাজ ম-ল, চিলমারীতে সৈয়দ আহম্মেদ, হোগলবাড়িয়ায় সেলিম চৌধুরী, পিয়ারপুরে আবু ইউসুফ লালু, রিফাইতপুরে জামিরুল ইসলাম, দৌলতপুরে মহিউল ইসলাম, আদাবাড়িয়ায় মকবুল হোসেন, বোয়ালিয়ায় মহিউদ্দীন বিশ^াস, খলিশাকু-িতে সিরাজুল বিশ^াস এবং আড়িয়ায় সাইদ আনছারী।

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার ভাংবাড়ীয়ায় নাহিদ হাসনাত, হারদীতে নুরুল ইসলাম, কুমারীতে আবু সাইদ, বাড়াদীতে আশাবুল হক, গাংনীতে এমদাদুল হক, খাদিমপুরে মোজাহিদুর রহমান জোয়ার্দ্দার, জেহালায় হাসান উজ্জামান, বেলগাছিতে সমীর কুমার দে, ডাউকীতে তরিকুল ইসলাম, জামজামীতে নজরুল ইসলাম, খাসকররায় মোস্তাফিজুর রহমান, চিৎলায় খোন্দকার আ. বাতেন এবং কালিদাশপুরে মনোনয়ন পেয়েছেন জয়নাল আবেদীন।

ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর উপজেলার সাফদারপুরে নওশের আলী, দোড়ায় কাবিল উদ্দীন বিশ^াস, কুশনায় আবদুল হান্নান, বলুহারে আ. মতিন ও এলাঙ্গীতে মিজানুর রহমান। কালিগঞ্জ উপজেলার সুন্দরপুর-দুর্গাপুরে ওহিদুল ইসলাম, জামালে মোদাচ্ছের হোসেন, কোলায় মনোয়ার হোসেন, নিয়ামতপুরে রাজু আহাম্মেদ, শিমলা-রোকনপুরে নাছির উদ্দীন, ত্রিলোচনপুরে নজরুল ইসলাম, রায়গ্রামে আলী হোসেন, মালিয়াটে জাহাঙ্গীর হোসেন বিশ^াস, বারবাজারে আবুল কালাম আজাদ, কাষ্টভাংগায় আয়ুব হোসেন খান এবং রাখালগাছিতে নৌকার মাঝি মহিদুল ইসলাম।

যশোরের শার্শা উপজেলার ডিহিতে আসাদুজ্জামান, লক্ষণপুরে আনোয়ারা খাতুন, বাহাদুরপুরে মিজানুর রহমান, পুটখালীতে আ. গফফার সরদার, গোগায় আবদুর রশিদ, কায়বায় হাসান ফিরোজ আহমেদ, বাগআঁচড়ায় ইলিয়াছ কবির (বকুল), উলশীতে আয়নাল হক, শার্শায় কবির উদ্দীন আহম্মদ ও নিজামপুরে আবদুল ওহাব পেয়েছেন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন। বাঘারপাড়া উপজেলার জহরপুরে আসাদুজ্জামান, বন্দবিলায় সনজীত কুমার বিশ^াস, রায়পুরে বিল্লাল হোসেন, নারিকেলবাড়ীয়ায় বাবলু কুমার সাহা, ধলগ্রামে রবিউল ইসলাম, দোহাকুলায় ওয়াহিদুর রহমান, দরাজহাটে জাকির হোসেন, বাসুয়াড়ীতে আমিনুর সরদার ও জামদিয়ায় শেখ আরিফুল ইসলাম।

মনিরামপুর উপজেলার রোহিতাতে হাফিজ উদ্দীন, কাশিমনগরে তৌহিদুর রহমান, ভোজগাতীতে আছমা তুন্নাহার, ঢাকুরিয়ায় এরশাদ আলী সরদার, হরিদাসকাটিতে বিপদ ভঞ্জন পাড়ে, মনিরামপুরে এয়াকুব আলী, খেদাপাড়ায় আবদুল আলীম, ঝাঁপায় সামছুল হক, মশ্বিমনগরে আবুল হোসেন, চালুয়াহাটিতে আবুল ইসলাম, শ্যামকুড়ে আলমগীর হোসেন, খাঁনপুরে আবুল কালাম আজাদ, দূর্বাডাঙ্গায় মাযাহারুল আনোয়ার, কুলটিয়ায় শেখরচন্দ্র রায়, নেহালপুরে এমএম ফারুক হুসাইন ও মনোহরপুরে মশিয়ুর রহমান।

মাগুরার মোহাম্মদপুর উপজেলার বাবুখালীতে মীর সাজজাদ আলী, বিনোদপুরে শিকদার মিজানুর রহমান, দীঘায় খোকন মিয়া, রাজাপুরে মিজানুর রহমান বিশ^াস, বালিদিয়ায় আবুল কালাম ফকির, মহম্মদপুরে রাবেয়া বেগম, পলাশবাড়ীয়ায় আলা উদ্দীন মাহমুদ ও নহাটায় আলী মিয়া। শালিখা উপজেলার ধনেশ্বরগাতীতে বিমলেন্দু শিকদার, তালখড়িতে সিরাজ উদ্দিন ম-ল, আড়পাড়ায় মুন্সী আবু হানিফ, শতখালীতে আনোয়ার হোসেন ঝন্টু, শালিখায় বাবলু হোসেন, বুনাগাতীতে বক্তিয়ার উদ্দিন, গঙ্গারামপুরে আবদুল হালিম মোল্লা।

নড়াইলের কালিয়া উপজেলার বাবরা হাচলায় তারা মিয়া সরদার, পুরুলিয়ায় এসএম হারুনার রশীদ, হামিদপুরে পলি বেগম, সালামাবাদে শামীম আহম্মেদ, চাচুড়িতে সিরাজুল ইসলাম হিরক, ইলায়াছাবাদে ফিরোজ মল্লিক, মাউলীতে রোজী হক, খাশিয়ালে হালিমা বেগম, জয়নগরে মুন্সী আনোয়ার হোসেন, কলাবাড়িয়ায় তালুকদার রবিউল হাসান, বাঐসোনায় শাহ ফোরকান মোল্যা ও পহরডাঙ্গায় নির্মল বিশ^াস। খুলনার তেরখাদা উপজেলার আজগড়ায় কৃষ্ণ মেনন রায়, বারাসাতে কেএম আলমগীর হোসেন, সাচিয়াদাহে বুলবুল আহমেদ, তেরখাদায় এফএম অহিদুজ্জামান, ছাগলাদাহে আ. শুকুর শেখ ও মধুপুরে মোহসিন। আর রূপসা উপজেলার ঘাটভোটে সাধন অধিকারী।

সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার কুলিয়ায় আসাদুল ইসলাম, পারুলিয়ায় সাইফুল ইসলাম, সখিপুরে শেখ ফারুক হোসেন, নওয়াপাড়ায় আলমগীর হোসেন, দেবহাটায় আলী মোর্তজা আনোয়ারুল হক। কালিগঞ্জ উপজেলার কৃষ্ণনগরে শ্যামলী অধিকারী, বিষ্ণুপুরে শেখ রিয়াজ উদ্দীন, চাম্পাফুলে মোজাম্মেল হক, দক্ষিণশ্রীপুরে গোবিন্দচন্দ্র ম-ল, কুশুলিয়ায় শেখ আবুল কাশেম মোহাম্মদ আবদুল্লাহ, নলতায় আবুল হোসেন, তারালীতে এনামুল হোসেন, ভাড়াশিমলায় আবুল হোসেন, মথুরেশপুরে ফিরোজ আহমেদ, ধলবাড়িয়ায় গাজী শওকাত হোসেন, রতনপুরে এম আলীম আল রাজী ও মৌতলায় রুহুল আমিন নৌকার মনোনয়ন পেয়েছেন।

বরিশাল বিভাগ : বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলার রায়হানপুরে মইনুল ইসলাম, নাচনাপাড়ায় ফরিদ মিয়া, চরদুয়ানীতে আবদুর রহমান ও পাথরঘাটায় আলমগীর হোসেন। পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ উপজেলার মাধবখালীতে কাজী মিজানুর রহমান, মির্জাগঞ্জে মনিরুল হক, আমড়াগাছিয়ায় সুলতান আহমেদ, দেউলিসুবিদখালীতে মোহাম্মাদ আনোয়ার হোসেন খান, কাকড়াবুনিয়ায় মাহাবুব আলম (স্বপন) ও মজিদবাড়ীয়ায় গোলাম সরওয়ার কিচলু।

ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার অধ্যক্ষ নজরুলনগরে মোহাম্মদ রুহুল আমিন হাওলাদার, ঢালচরে আবদুছ সালাম হাওলাদার, আবুবকরপুরে সিরাজ জমদার, আবদুল্লাহপুরে মোহাম্মদ আলে এমরান, ওসমানগঞ্জে আশরাফুল আলম, চর মানিকায় শফিউল্যাহ হাওলাদার, রসুলপুরে জহিরুল ইসলাম প-িত ও চর কুকরিমুকরিতে আবুল হাসেম। বরিশালের উজিরপুর উপজেলার হারতায় অমল মল্লিক, বামরাইলে ইউছুব হাওলাদার ও গুঠিয়ায় আবদুস সাত্তার মোল্লা। বাবুগঞ্জ উপজেলার রহমতপুরে মুহাম্মদ আক্তার-উজ-জামান ও বাটামারায় সালাহ উদ্দিন। পিরোজপুরের কাউখালী উপজেলার ছয়নারঘুনাথপুরে এইচএমআরকে খোকন এবং চিড়াপাড়া পারসাতুরিয়ায় মাহমুদ খাঁন নৌকার মনোনয়ন পেয়েছেন।