‘সরকারের গণমাধ্যমের ক্ষেত্রে ব্যয় বাড়ানোর চিন্তা রয়েছে ’

21

সরকারের দেশের সব ক্ষেত্রে ব্যয় বাড়ানো হচ্ছে উল্লেখ করে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, গণমাধ্যমের ক্ষেত্রেও ব্যয় বাড়ানোর পরিকল্পনা রয়েছে । আর কল্যাণ ফান্ড সার্বিক প্রয়াসের অংশ হতে পারে।

বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন- ক্র্যাবের এক অনুষ্ঠানে যুগান্তর সম্পাদক সাইফুল আলমের এক বক্তব্য টেনে পরিকল্পনামন্ত্রী এ কথা বলেন।

প্রয়াত সদস্যদের স্মরণ ও তাদের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দিতে বুধবার ঢাকার সেগুনবাগিচায় নিজেদের কার্যালয়ে অনুষ্ঠানটির আয়োজন করে ক্র্যাব।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সম্পাদক সাইফুল আলম সাংবাদিকদের পেনশন দেয়ার বিষয়ে পরিকল্পনামন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

সাংবাদিকরা তাদের কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে জাতীয় পর্যায়ে পৌঁছান মন্তব্য করে সাইফুল আলম বলেন, দুঃখজনকভাবে প্রয়াত সাংবাদিকদের কেউ স্মরণ করে না। যখন কোনো সাংবাদিক মারা যান, তখন তার পরিবার চোখে অন্ধকার দেখে।’

এসময় তিনি সাংবাদিকদের জন্য থাকা কল্যাণ ট্রাস্ট পর্যাপ্ত নয় উল্লেখ করে রিপোর্টারদের জন্য আলাদা কল্যাণ ট্রাস্ট গঠনে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

এরপর প্রধান অতিথির বক্তব্যে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, সরকার পর্যাক্রমে দেশের সব নাগরিককে পেনশনের আওতায় আনার কথা ভাবছে।’

‘ইতোমধ্যে অনেক পেশায় পেনশন প্রথা চালু রয়েছে। বাকিদের জন্য পেনশন সুবিধা দেয়া যায় কিনা তা নিয়ে সরকারের পরিকল্পনা রয়েছে’─যোগ করেন মন্ত্রী।

সব ক্ষেত্রে ব্যয় বাড়ানো হচ্ছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, গণমাধ্যমের ক্ষেত্রেও ব্যয় বাড়ানোর পরিকল্পনা রয়েছে। কল্যাণ ফান্ড সার্বিক প্রয়াসের অংশ হতে পারে।’

ক্র্যাবের কল্যাণ সম্পাদক নাহিদ তন্ময়ের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে কুড়িগ্রাম-২ আসনের সংসদ সদস্য পনির উদ্দিন আহমেদ, ক্র্যাবের সভাপতি মিজান মালিক বক্তব্য দেন।

প্রয়াতদের স্মৃতিচারণ করেন ক্র্যাবের সাবেক সভাপতি আবুল খায়ের, এস এম আবুল হোসেন, সিনিয়র সদস্য গাফফার মাহমুদ।

এছাড়াও ক্র্যাবের প্রয়াত সদস্য বশির আহমেদ এর ছেলে সালেহ, আরিফ রহমানের মেয়ে অহনা রহমান ও আসলাম রহমানের স্ত্রী ফাতেমা রহমান বক্তব্য দেন।

অনুষ্ঠানে ক্র্যাবের প্রয়াত ২০ সদস্যের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেয়া হয়।