সারা দেশেই অনুভূত হচ্ছে তীব্র শীত ৮ জেলা শৈত্যপ্রবাহের কবলে

20

সারা দেশেই অনুভূত হচ্ছে তীব্র শীত গত কয়েকদিন ধরে। ঘন কুয়াশায় রোদের দেখা না মেলায় দিন ও রাতের তাপমাত্রার ব্যবধান কমে গিয়ে দেশের আট জেলায় শুরু হয়েছে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ। আজ বৃহস্পতিবার সকালে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে যশোরে।

গতকাল বুধবার সকালে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছিল মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে। ঢাকায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৪ দশমিক ১ থেকে কমে হয়েছে ১২ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নেমেছে।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে রাজশাহীতে ১০, পাবনার ঈশ্বরদীতে ৯ দশমিক ৫, দিনাজপুরে ৯ দশমিক ৮, নীলফামারীর সৈয়দপুরে ৯ দশমিক ৬, পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় ১০, চুয়াডাঙ্গায় ৯ দশমিক ২ ও কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করেছে আবহাওয়া বিভাগ।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্যানুযায়ী, তাপমাত্রা ৮ থেকে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে থাকলে তাকে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ এবং ৬ থেকে ৮ ডিগ্রির মধ্যে থাকলে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ বলে। আর তাপমাত্রা ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে নেমে গেলে তাকে বলে তীব্র শৈত্যপ্রবাহ।

আবহাওয়াবিদ মো. আব্দুল হামিদ মিয়া জানান, রাজশাহী, পাবনা, দিনাজপুর, পঞ্চগড়, নীলফামারী, যশোর, চুয়াডাঙ্গা ও কুষ্টিয়া অঞ্চলের ওপর দিয়ে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা অব্যাহত থাকতে পারে।

বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাস তুলে ধরে হামিদ মিয়া বলেন, আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত সারাদেশে মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা পড়তে পারে এবং এটি দেশের কোথাও কোথাও দুপুর পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে।

সারাদেশে রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে এবং দিনের তাপমাত্রা সামান্য বাড়তে পারে। দিন ও রাতের তাপমাত্রার পার্থক্য কমার কারণে দেশের উত্তর, উত্তর-পশ্চিমাঞ্চল এবং মধ্যাঞ্চলে মাঝারি থেকে তীব্র শীতের অনুভূতি অব্যাহত থাকতে পারে বলেও জানান এ আবহাওয়াবিদ।