সালমান এফ রহমানের নির্দেশ অনুমতি ছাড়া ছবি ব্যবহার না করার

11

প্রধানমন্ত্রীর শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা এবং ঢাকা-১ আসনের সংসদ সদস্য সালমান এফ রহমান দোহার ও নবাবগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে যত্রতত্র অনুমোদনবিহীন, অপ্রয়োজনীয় দৃষ্টিকটু পোস্টার, ব্যানার ও ফেস্টুন অপসারণে ফের প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছেন । গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নবাবগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের নিজস্ব ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে সালমান এফ রহমান এমপি’র স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত লিখিত নির্দেশ পোস্ট করা হয়।

নবাবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এইচএম সালাউদ্দিন মনজু বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, গত ২২শে অক্টোবর এ সংক্রান্ত নির্দেশনাটি দেয়া হয়েছিল। সম্প্রতি এমপি এ বিষয়ে ওই নির্দেশনাটি আবার আমাদের দিয়েছেন। নির্দেশনায় লিখিতভাবে নবাবগঞ্জ ও দোহার উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও অফিসার ইনচার্জদ্বয়কে জানানো হয়। এছাড়া অনুলিপিতে নির্দেশনাটি প্রতিপালনের লক্ষ্যে নবাবগঞ্জ ও দোহার উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে সহযোগী সংগঠনের প্রতি দিকনির্দেশনা প্রদানের জন্য বলা হয়।

সালমান এফ রহমান এমপি’র স্বাক্ষরিত লিখিত নির্দেশনাপত্রে জানানো হয়, আমার নির্বাচনী এলাকায় যত্রতত্র অনুমোদন বিহীন পোস্টার, ব্যানার ও ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে। আবার শোনা যাচ্ছে কোথাও কোথাও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নীতি ও আদর্শের পরিপন্থি, দলে অনুপ্রবেশকারী এবং বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের সঙ্গে সম্পৃক্ত ব্যক্তিরা স্থানীয় সংসদ সদস্য ও আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দের সঙ্গে নিজেদের ছবি সংযুক্ত করে পোস্টার, ব্যানার ও ফেস্টুন টাঙিয়ে নিজেদের অপকর্ম আড়াল করতে এবং এলাকায় নিজেকে প্রভাবশালী হিসেবে প্রচার করতে চাচ্ছে। এ প্রেক্ষাপটে, আমার নির্বাচনী এলাকা ঢাকা-১ (দোহার-নবাবগঞ্জ)-এ বিভিন্ন প্রয়োজনে পোস্টার, ব্যানার ও ফেস্টুন স্থাপনের ক্ষেত্রে: যত্রতত্র পোস্টার, ব্যানার ও ফেস্টুন লাগিয়ে পরিবেশের ক্ষতিসাধন করা যাবে না।

শুধুমাত্র সরকারের উন্নয়ন প্রচারের জন্য জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের ছবি সংবলিত পোস্টার, ব্যানার ও ফেস্টুন বিশেষ বিশেষ স্থানে টাঙানো যেতে পারে। তবে কোনো অবস্থাতেই এই পোস্টার, ব্যানার ও ফেস্টুনের সঙ্গে আমার ছবি অন্তর্ভুক্ত করা যাবে না। এছাড়া অন্য সকল অপ্রয়োজনীয় পোস্টার, ব্যানার ও ফেস্টুন অবিলম্বে অপসারণ করতে হবে। আমার ছবি সংবলিত কোনো পোস্টার, ব্যানার ও ফেস্টুন প্রচারের ক্ষেত্রে অবশ্যই এর অনুলিপি আমার কার্যালয়ে দাখিল করে পূর্বানুমতি নিতে হবে। আমার অনুমতি ব্যতীত আমার ছবি সংবলিত কোনো পোস্টার, ব্যানার ও ফেস্টুন প্রচার করা যাবে না। সরকার কর্তৃক প্রদত্ত বিভিন্ন পোস্টার, ব্যানার ও ফেস্টুন প্রচারের জন্য সংশ্লিষ্ট সরকারি কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা নেবে। এমতাবস্থায় বর্ণিত নির্দেশনাবলী কার্যকর করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য দোহার ও নবাবগঞ্জ উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা ও অফিসার ইনচার্জকে অনুরোধ করা হয়েছে।