হটলাইন আবার চালু দুই কোরিয়ার

30

পুনঃস্থাপন করা হয়েছে এক বছর পরে উত্তর ও দক্ষিণ কোরিয়ার মধ্যে হটলাইন বা টেলিফোন যোগাযোগ । গত বছর জুনে দুই দেশের মধ্যে একটি সামিট ব্যর্থ হওয়ার পর সম্পর্কে তিক্ততা বৃদ্ধি পায়। ওই সময় পিয়ংইয়ং হটলাইন বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছিল। এর পরপরই সীমান্তে আন্তঃকোরিয়া সীমান্ত অফিস উড়িয়ে দেয় উত্তর কোরিয়া। এই অফিস স্থাপন করা হয়েছিল যোগাযোগ উন্নত করার জন্য। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি।

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্টের অফিস থেকে বলা হয়েছে, দুই দেশের নেতারা আস্থা এবং সম্পর্কের উন্নতি পুনর্গঠনে একমত হয়েছেন। বিবৃতিতে আরো বলা হয়, এপ্রিল থেকে এ পর্যন্ত বেশ কিছু ব্যক্তিগত চিঠি বিনিময় হয়েছে তাদের মধ্যে। উত্তর কোরিয়ার সরকারি বার্তা সংস্থা কেসিএনএ’কে এক কর্মকর্তা বলেছেন, দুই দেশের শীর্ষ নেতারা যে ঐকমতে এসেছেন, তার অধীনে ২৭ শে জুলাই স্থানীয় সময় সকাল ১০টা থেকে দুই কোরিয়ার মধ্যে যোগাযোগ লাইন নতুন করে চালু হয়েছে। দক্ষিণ কোরিয়ার একত্রীকরণ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মতে, উভয় পক্ষের প্রতিনিধিরা তিন মিনিট ফোনে কথা বলেছেন। মঙ্গলবার বিকেলে আরেক দফা ফোন করা হবে। তারপর প্রতিদিনই এই লাইন সচল থাকবে।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে-ইন এবং উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উনের মধ্যে তিনবার সাক্ষাত হয়। ওই সময় তাদের মধ্যে সম্পর্ক উন্নত হয়েছিল। কিন্তু কিম জং উন এবং যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যে দ্বিতীয় দফা সামিট ভেঙে যাওয়ার পর সেই সম্পর্ক দ্রুততার সঙ্গে অবনতি হয়। এরপর উত্তেজনা আরো তীব্র হতে থাকে।