14

যেভাবে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হতে পারে বাংলাদেশ
দুই মাস আগে আইসিসি জানিয়েছিল প্রথম পর্বে গ্রুপ ‘এ’ থেকে শ্রীলঙ্কা ও ‘বি’ থেকে বাংলাদেশ রানার্সআপ কিংবা চ্যাম্পিয়ন যাই হোক না কেন দুই দল যাবে দুই গ্রুপে। সে হিসেবে বাংলাদেশের যাওয়ার কথা ছিল ভারত, পাকিস্তান কিংবা নিউজিল্যান্ডের গ্রুপে। কিন্তু হঠাৎ নিজেদের সিদ্ধান্ত বদলে নিয়েছে আইসিসি ফলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন না হলে বাংলাদেশকে যেতে হবে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ডের গ্রুপে। কিন্তু মূল পর্বে যেতে হলে অবশ্যই শেষ ম্যাচে পাপুয়া নিউ গিনির (পিএনজি) সঙ্গে জয়ের বিকল্প নেই।

বিশ্বকাপের শুরুটা হয়েছিল স্কটল্যান্ডের সঙ্গে হেরে। এবার সমীকরণ এমন দাঁড়াচ্ছে যে সেই স্কটল্যান্ডই হয়তো বাদ পড়তে পারে বিশ্বকাপের মঞ্চ থেকে। যদি শেষ ম্যাচে যেভাবে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হতে পারে বাংলাদেশ
দুই মাস আগে আইসিসি জানিয়েছিল প্রথম পর্বে গ্রুপ ‘এ’ থেকে শ্রীলঙ্কা ও ‘বি’ থেকে বাংলাদেশ রানার্সআপ কিংবা চ্যাম্পিয়ন যাই হোক না কেন দুই দল যাবে দুই গ্রুপে। সে হিসেবে বাংলাদেশের যাওয়ার কথা ছিল ভারত, পাকিস্তান কিংবা নিউজিল্যান্ডের গ্রুপে। কিন্তু হঠাৎ নিজেদের সিদ্ধান্ত বদলে নিয়েছে আইসিসি ফলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন না হলে বাংলাদেশকে যেতে হবে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ডের গ্রুপে। কিন্তু মূল পর্বে যেতে হলে অবশ্যই শেষ ম্যাচে পাপুয়া নিউ গিনির (পিএনজি) সঙ্গে জয়ের বিকল্প নেই।

বিশ্বকাপের শুরুটা হয়েছিল স্কটল্যান্ডের সঙ্গে হেরে। এবার সমীকরণ এমন দাঁড়াচ্ছে যে সেই স্কটল্যান্ডই হয়তো বাদ পড়তে পারে বিশ্বকাপের মঞ্চ থেকে। যদি শেষ ম্যাচে ওমানেযেভাবে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হতে পারে বাংলাদেশ
দুই মাস আগে আইসিসি জানিয়েছিল প্রথম পর্বে গ্রুপ ‘এ’ থেকে শ্রীলঙ্কা ও ‘বি’ থেকে বাংলাদেশ রানার্সআপ কিংবা চ্যাম্পিয়ন যাই হোক না কেন দুই দল যাবে দুই গ্রুপে। সে হিসেবে বাংলাদেশের যাওয়ার কথা ছিল ভারত, পাকিস্তান কিংবা নিউজিল্যান্ডের গ্রুপে। কিন্তু হঠাৎ নিজেদের সিদ্ধান্ত বদলে নিয়েছে আইসিসি ফলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন না হলে বাংলাদেশকে যেতে হবে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ডের গ্রুপে। কিন্তু মূল পর্বে যেতে হলে অবশ্যই শেষ ম্যাচে পাপুয়া নিউ গিনির (পিএনজি) সঙ্গে জয়ের বিকল্প নেই।

বিশ্বকাপের শুরুটা হয়েছিল স্কটল্যান্ডের সঙ্গে হেরে। এবার সমীকরণ এমন দাঁড়াচ্ছে যে সেই স্কটল্যান্ডই হয়তো বাদ পড়তে পারে বিশ্বকাপের মঞ্চ থেকে। যদি শেষ ম্যাচে ওমানের সঙ্গে হেরে বসে, তাহলে নিশ্চিতভাবে বিদায় নিতে হবে স্কটিশদের। আর অন্য ম্যাচে পিএনজিকে তিন রানে হারাতে পারলেই অন্তত গ্রুপের দ্বিতীয় দল হিসেবে মূল পর্বে পা রাখবে বাংলাদেশ।টানা দুই জয়ে ৪ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষে আছে স্কটল্যান্ড, তাদের রেটিং পয়েন্ট ০.৫৭৫। ২ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে থাকা ওমানের রেটিং ০.৬১৩। সমান পয়েন্ট নিয়ে রান রেটে পিছিয়ে তিনে থাকা বাংলাদেশের রেটিং ০.৫০০। এখনও কোনো জয় না পাওয়া পাপুয়া নিউ গিনি (-১.৮৬৭) রান রেটে বেশ পিছিয়ে।

কাগজে কলমে মূল পর্বের সম্ভাবনা বেঁচে আছে চার দলেরই। বাংলাদেশকে জিতবে হবে ৩ রানে, স্কটল্যান্ড ও ওমানের জন্য হিসাব সোজা, জিতলেই নিশ্চিত হবে সুপার টুয়েলভ। পাপুয়া নিউ গিনির স্রেফ জিতলেই হবে না। জিততে হবে বড় ব্যবধান, এরপর অন্য ম্যাচে তাকিয়ে থাকতে হবে ওমানের বড় হারের দিকে।

গ্রুপের শেষ ম্যাচে পাপুয়া নিউ গিনির বিপক্ষে বাংলাদেশকে জিতবে হবে ৩ রানে। তাতেই দ্বিতীয় দল হিসেবে কোয়ালিফাই নিশ্চিত হবে। আবার যদি হেরে যায়, তবে ওমানের হারের দিকে চেয়ে থাকতে হবে। সেক্ষেত্রে অবশ্য বাংলাদেশ যদি ১০ রানে হারে ওমানকে হারতে হবে ১৩ রানে। আর ওমান কোনোভাবে জিততেই তারা যাবে দ্বিতীয় দল হিসেবে।

এ গ্রুপে চ্যাম্পিয়ন হতে পারে স্কটল্যান্ড, ওমান কিংবা বাংলাদেশ। পিএনজিকে হারালে বাংলাদেশের পয়েন্ট হবে চার, স্কটিশদের হারালে ওমানেরও পয়েন্ট হবে চার। প্রথম দুই ম্যাচে জেতা স্কটিশদের পয়েন্টও চার। যার কারণে শেষ ম্যাচে ওমান যদি ১০ রানে জিতে, তাহলে বাংলাদেশের জিততে হবে অন্তত ১৫ রানে। তাতেই গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে মূল পর্বে ভারত, পাকিস্তানের গ্রুপে পড়বে বাংলাদেশ।যেভাবে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হতে পারে বাংলাদেশ
দুই মাস আগে আইসিসি জানিয়েছিল প্রথম পর্বে গ্রুপ ‘এ’ থেকে শ্রীলঙ্কা ও ‘বি’ থেকে বাংলাদেশ রানার্সআপ কিংবা চ্যাম্পিয়ন যাই হোক না কেন দুই দল যাবে দুই গ্রুপে। সে হিসেবে বাংলাদেশের যাওয়ার কথা ছিল ভারত, পাকিস্তান কিংবা নিউজিল্যান্ডের গ্রুপে। কিন্তু হঠাৎ নিজেদের সিদ্ধান্ত বদলে নিয়েছে আইসিসি ফলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন না হলে বাংলাদেশকে যেতে হবে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ডের গ্রুপে। কিন্তু মূল পর্বে যেতে হলে অবশ্যই শেষ ম্যাচে পাপুয়া নিউ গিনির (পিএনজি) সঙ্গে জয়ের বিকল্প নেই।

বিশ্বকাপের শুরুটা হয়েছিল স্কটল্যান্ডের সঙ্গে হেরে। এবার সমীকরণ এমন দাঁড়াচ্ছে যে সেই স্কটল্যান্ডই হয়তো বাদ পড়তে পারে বিশ্বকাপের মঞ্চ থেকে। যদি শেষ ম্যাচে ওমানের সঙ্গে হেরে বসে, তাহলে নিশ্চিতভাবে বিদায় নিতে হবে স্কটিশদের। আর অন্য ম্যাচে পিএনজিকে তিন রানে হারাতে পারলেই অন্তত গ্রুপের দ্বিতীয় দল হিসেবে মূল পর্বে পা রাখবে বাংলাদেশ।টানা দুই জয়ে ৪ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষে আছে স্কটল্যান্ড, তাদের রেটিং পয়েন্ট ০.৫৭৫। ২ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে থাকা ওমানের রেটিং ০.৬১৩। সমান পয়েন্ট নিয়ে রান রেটে পিছিয়ে তিনে থাকা বাংলাদেশের রেটিং ০.৫০০। এখনও কোনো জয় না পাওয়া পাপুয়া নিউ গিনি (-১.৮৬৭) রান রেটে বেশ পিছিয়ে।

কাগজে কলমে মূল পর্বের সম্ভাবনা বেঁচে আছে চার দলেরই। বাংলাদেশকে জিতবে হবে ৩ রানে, স্কটল্যান্ড ও ওমানের জন্য হিসাব সোজা, জিতলেই নিশ্চিত হবে সুপার টুয়েলভ। পাপুয়া নিউ গিনির স্রেফ জিতলেই হবে না। জিততে হবে বড় ব্যবধান, এরপর অন্য ম্যাচে তাকিয়ে থাকতে হবে ওমানের বড় হারের দিকে।

গ্রুপের শেষ ম্যাচে পাপুয়া নিউ গিনির বিপক্ষে বাংলাদেশকে জিতবে হবে ৩ রানে। তাতেই দ্বিতীয় দল হিসেবে কোয়ালিফাই নিশ্চিত হবে। আবার যদি হেরে যায়, তবে ওমানের হারের দিকে চেয়ে থাকতে হবে। সেক্ষেত্রে অবশ্য বাংলাদেশ যদি ১০ রানে হারে ওমানকে হারতে হবে ১৩ রানে। আর ওমান কোনোভাবে জিততেই তারা যাবে দ্বিতীয় দল হিসেবে।

এ গ্রুপে চ্যাম্পিয়ন হতে পারে স্কটল্যান্ড, ওমান কিংবা বাংলাদেশ। পিএনজিকে হারালে বাংলাদেশের পয়েন্ট হবে চার, স্কটিশদের হারালে ওমানেরও পয়েন্ট হবে চার। প্রথম দুই ম্যাচে জেতা স্কটিশদের পয়েন্টও চার। যার কারণে শেষ ম্যাচে ওমান যদি ১০ রানে জিতে, তাহলে বাংলাদেশের জিততে হবে অন্তত ১৫ রানে। তাতেই গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে মূল পর্বে ভারত, পাকিস্তানের গ্রুপে পড়বে বাংলাদেশ।যেভাবে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হতে পারে বাংলাদেশ
দুই মাস আগে আইসিসি জানিয়েছিল প্রথম পর্বে গ্রুপ ‘এ’ থেকে শ্রীলঙ্কা ও ‘বি’ থেকে বাংলাদেশ রানার্সআপ কিংবা চ্যাম্পিয়ন যাই হোক না কেন দুই দল যাবে দুই গ্রুপে। সে হিসেবে বাংলাদেশের যাওয়ার কথা ছিল ভারত, পাকিস্তান কিংবা নিউজিল্যান্ডের গ্রুপে। কিন্তু হঠাৎ নিজেদের সিদ্ধান্ত বদলে নিয়েছে আইসিসি ফলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন না হলে বাংলাদেশকে যেতে হবে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ডের গ্রুপে। কিন্তু মূল পর্বে যেতে হলে অবশ্যই শেষ ম্যাচে পাপুয়া নিউ গিনির (পিএনজি) সঙ্গে জয়ের বিকল্প নেই।

যেভাবে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হতে পারে বাংলাদেশ
দুই মাস আগে আইসিসি জানিয়েছিল প্রথম পর্বে গ্রুপ ‘এ’ থেকে শ্রীলঙ্কা ও ‘বি’ থেকে বাংলাদেশ রানার্সআপ কিংবা চ্যাম্পিয়ন যাই হোক না কেন দুই দল যাবে দুই গ্রুপে। সে হিসেবে বাংলাদেশের যাওয়ার কথা ছিল ভারত, পাকিস্তান কিংবা নিউজিল্যান্ডের গ্রুপে। কিন্তু হঠাৎ নিজেদের সিদ্ধান্ত বদলে নিয়েছে আইসিসি ফলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন না হলে বাংলাদেশকে যেতে হবে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ডের গ্রুপে। কিন্তু মূল পর্বে যেতে হলে অবশ্যই শেষ ম্যাচে পাপুয়া নিউ গিনির (পিএনজি) সঙ্গে জয়ের বিকল্প নেই।

বিশ্বকাপের শুরুটা হয়েছিল স্কটল্যান্ডের সঙ্গে হেরে। এবার সমীকরণ এমন দাঁড়াচ্ছে যে সেই স্কটল্যান্ডই হয়তো বাদ পড়তে পারে বিশ্বকাপের মঞ্চ থেকে। যদি শেষ ম্যাচে ওমানের সঙ্গে হেরে বসে, তাহলে নিশ্চিতভাবে বিদায় নিতে হবে স্কটিশদের। আর অন্য ম্যাচে পিএনজিকে তিন রানে হারাতে পারলেই অন্তত গ্রুপের দ্বিতীয় দল হিসেবেযেভাবে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হতে পারে বাংলাদেশ
দুই মাস আগে আইসিসি জানিয়েছিল প্রথম পর্বে গ্রুপ ‘এ’ থেকে শ্রীলঙ্কা ও ‘বি’ থেকে বাংলাদেশ রানার্সআপ কিংবা চ্যাম্পিয়ন যাই হোক না কেন দুই দল যাবে দুই গ্রুপে। সে হিসেবে বাংলাদেশের যাওয়ার কথা ছিল ভারত, পাকিস্তান কিংবা নিউজিল্যান্ডের গ্রুপে। কিন্তু হঠাৎ নিজেদের সিদ্ধান্ত বদলে নিয়েছে আইসিসি ফলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন না হলে বাংলাদেশকে যেতে হবে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ডের গ্রুপে। কিন্তু মূল পর্বে যেতে হলে অবশ্যই শেষ ম্যাচে পাপুয়া নিউ গিনির (পিএনজি) সঙ্গে জয়ের বিকল্প নেই।

বিশ্বকাপের শুরুটা হয়েছিল স্কটল্যান্ডের সঙ্গে হেরে। এবার সমীকরণ এমন দাঁড়াচ্ছে যে সেই স্কটল্যান্ডই হয়তো বাদ পড়তে পারে বিশ্বকাপের মঞ্চ থেকে। যদি শেষ ম্যাচে ওমানের সঙ্গে হেরে বসে, তাহলে নিশ্চিতভাবে বিদায় নিতে হবে স্কটিশদের। আর অন্য ম্যাচে পিএনজিকে তিন রানে হারাতে পারলেই অন্তত গ্রুপের দ্বিতীয় দল হিসেবে মূল পর্বে পা রাখবে বাংলাদেশ।টানা দুই জয়ে ৪ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষে আছে স্কটল্যান্ড, তাদের রেটিং পয়েন্ট ০.৫৭৫। ২ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে থাকা ওমানের রেটিং ০.৬১৩। সমান পয়েন্ট নিয়ে রান রেটে পিছিয়ে তিনে থাকা বাংলাদেশের রেটিং ০.৫০০। এখনও কোনো জয় না পাওয়া পাপুয়া নিউ গিনি (-১.৮৬৭) রান রেটে বেশ পিছিয়ে।

কাগজে কলমে মূল পর্বের সম্ভাবনা বেঁচে আছে চার দলেরই। বাংলাদেশকে জিতবে হবে ৩ রানে, স্কটল্যান্ড ও ওমানের জন্য হিসাব সোজা, জিতলেই নিশ্চিত হবে সুপার টুয়েলভ। পাপুয়া নিউ গিনির স্রেফ জিতলেই হবে না। জিততে হবে বড় ব্যবধান, এরপর অন্য ম্যাচে তাকিয়ে থাকতে হবে ওমানের বড় হারের দিকে।

গ্রুপের শেষ ম্যাচে পাপুয়া নিউ গিনির বিপক্ষে বাংলাদেশকে জিতবে হবে ৩ রানে। তাতেই দ্বিতীয় দল হিসেবে কোয়ালিফাই নিশ্চিত হবে। আবার যদি হেরে যায়, তবে ওমানের হারের দিকে চেয়ে থাকতে হবে। সেক্ষেত্রে অবশ্য বাংলাদেশ যদি ১০ রানে হারে ওমানকে হারতে হবে ১৩ রানে। আর ওমান কোনোভাবে জিততেই তারা যাবে দ্বিতীয় দল হিসেবে।

এ গ্রুপে চ্যাম্পিয়ন হতে পারে স্কটল্যান্ড, ওমান কিংবা বাংলাদেশ। পিএনজিকে হারালে বাংলাদেশের পয়েন্ট হবে চার, স্কটিশদের হারালে ওমানেরও পয়েন্ট হবে চার। প্রথম দুই ম্যাচে জেতা স্কটিশদের পয়েন্টও চার। যার কারণে শেষ ম্যাচে ওমান যদি ১০ রানে জিতে, তাহলে বাংলাদেশের জিততে হবে অন্তত ১৫ রানে। তাতেই গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে মূল পর্বে ভারত, পাকিস্তানের গ্রুপে পড়বে বাংলাদেশ। মূল পর্বে পা রাখবে বাংলাদেশ।টানা দুই জয়ে ৪ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষে আছে স্কটল্যান্ড, তাদের রেটিং পয়েন্ট ০.৫৭৫। ২ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে থাকা ওমানের রেটিং ০.৬১৩। সমান পয়েন্ট নিয়ে রান রেটে পিছিয়ে তিনে থাকা বাংলাদেশের রেটিং ০.৫০০। এখনও কোনো জয় না পাওয়া পাপুয়া নিউ গিনি (-১.৮৬৭) রান রেটে বেশ পিছিয়ে।

কাগজে কলমে মূল পর্বের সম্ভাবনা বেঁচে আছে চার দলেরই। বাংলাদেশকে জিতবে হবে ৩ রানে, স্কটল্যান্ড ও ওমানের জন্য হিসাব সোজা, জিতলেই নিশ্চিত হবে সুপার টুয়েলভ। পাপুয়া নিউ গিনির স্রেফ জিতলেই হবে না। জিততে হবে বড় ব্যবধান, এরপর অন্য ম্যাচে তাকিয়ে থাকতে হবে ওমানের বড় হারের দিকে।

গ্রুপের শেষ ম্যাচে পাপুয়া নিউ গিনির বিপক্ষে বাংলাদেশকে জিতবে হবে ৩ রানে। তাতেই দ্বিতীয় দল হিসেবে কোয়ালিফাই নিশ্চিত হবে। আবার যদি হেরে যায়, তবে ওমানের হারের দিকে চেয়ে থাকতে হবে। সেক্ষেত্রে অবশ্য বাংলাদেশ যদি ১০ রানে হারে ওমানকে হারতে হবে ১৩ রানে। আর ওমান কোনোভাবে জিততেই তারা যাবে দ্বিতীয় দল হিসেবে।

এ গ্রুপে চ্যাম্পিয়ন হতে পারে স্কটল্যান্ড, ওমান কিংবা বাংলাদেশ। পিএনজিকে হারালে বাংলাদেশের পয়েন্ট হবে চার, স্কটিশদের হারালে ওমানেরও পয়েন্ট হবে চার। প্রথম দুই ম্যাচে জেতা স্কটিশদের পয়েন্টও চার। যার কারণে শেষ ম্যাচে ওমান যদি ১০ রানে জিতে, তাহলে বাংলাদেশের জিততে হবে অন্তত ১৫ রানে। তাতেই গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে মূল পর্বে ভারত, পাকিস্তানের গ্রুপে পড়বে বাংলাদেশ।
কাগজে কলমে মূল পর্বের সম্ভাবনা বেঁচে আছে চার দলেরই। বাংলাদেশকে জিতবে হবে ৩ রানে, স্কটল্যান্ড ও ওমানের জন্য হিসাব সোজা, জিতলেই নিশ্চিত হবে সুপার টুয়েলভ। পাপুয়া নিউ গিনির স্রেফ জিতলেই হবে না। জিততে হবে বড় ব্যবধান, এরপর অন্য ম্যাচে তাকিয়ে থাকতে হবে ওমানের বড় হারের দিকে।

গ্রুপের শেষ ম্যাচে পাপুয়া নিউ গিনির বিপক্ষে বাংলাদেশকে জিতবে হবে ৩ রানে। তাতেই দ্বিতীয় দল হিসেবে কোয়ালিফাই নিশ্চিত হবে। আবার যদি হেরে যায়, তবে ওমানের হারের দিকে চেয়ে থাকতে হবে। সেক্ষেত্রে অবশ্য বাংলাদেশ যদি ১০ রানে হারে ওমানকে হারতে হবে ১৩ রানে। আর ওমান কোনোভাবে জিততেই তারা যাবে দ্বিতীয় দল হিসেবে।

এ গ্রুপে চ্যাম্পিয়ন হতে পারে স্কটল্যান্ড, ওমান কিংবা বাংলাদেশ। পিএনজিকে হারালে বাংলাদেশের পয়েন্ট হবে চার, স্কটিশদের হারালে ওমানেরও পয়েন্ট হবে চার। প্রথম দুই ম্যাচে জেতা স্কটিশদের পয়েন্টও চার। যার কারণে শেষ ম্যাচে ওমান যদি ১০ রানে জিতে, তাহলে বাংলাদেশের জিততে হবে অন্তত ১৫ রানে। তাতেই গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে মূল পর্বে ভারত, পাকিস্তানের গ্রুপে পড়বে বাংলাদেশ।যেভাবে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হতে পারে বাংলাদেশ
দুই মাস আগে আইসিসি জানিয়েছিল প্রথম পর্বে গ্রুপ ‘এ’ থেকে শ্রীলঙ্কা ও ‘বি’ থেকে বাংলাদেশ রানার্সআপ কিংবা চ্যাম্পিয়ন যাই হোক না কেন দুই দল যাবে দুই গ্রুপে। সে হিসেবে বাংলাদেশের যাওয়ার কথা ছিল ভারত, পাকিস্তান কিংবা নিউজিল্যান্ডের গ্রুপে। কিন্তু হঠাৎ নিজেদের সিদ্ধান্ত বদলে নিয়েছে আইসিসি ফলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন না হলে বাংলাদেশকে যেতে হবে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ডের গ্রুপে। কিন্তু মূল পর্বে যেতে হলে অবশ্যই শেষ ম্যাচে পাপুয়া নিউ গিনির (পিএনজি) সঙ্গে জয়ের বিকল্প নেই।

বিশ্বকাপের শুরুটা হয়েছিল স্কটল্যান্ডের সঙ্গে হেরে। এবার সমীকরণ এমন দাঁড়াচ্ছে যে সেই স্কটল্যান্ডই হয়তো বাদ পড়তে পারে বিশ্বকাপের মঞ্চ থেকে। যদি শেষ ম্যাচে ওমানের সঙ্গে হেরে বসে, তাহলে নিশ্চিতভাবে বিদায় নিতে হবে স্কটিশদের। আর অন্য ম্যাচে পিএনজিকে তিন রানে হারাতে পারলেই অন্তত গ্রুপের দ্বিতীয় দল হিসেবে মূল পর্বে পা রাখবে বাংলাদেশ।টানা দুই জয়ে ৪ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষে আছে স্কটল্যান্ড, তাদের রেটিং পয়েন্ট ০.৫৭৫। ২ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে থাকা ওমানের রেটিং ০.৬১৩। সমান পয়েন্ট নিয়ে রান রেটে পিছিয়ে তিনে থাকা বাংলাদেশের রেটিং ০.৫০০। এখনও কোনো জয় না পাওয়া পাপুয়া নিউ গিনি (-১.৮৬৭) রান রেটে বেশ পিছিয়ে।

কাগজে কলমে মূল পর্বের সম্ভাবনা বেঁচে আছে চার দলেরই। বাংলাদেশকে জিতবে হবে ৩ রানে, স্কটল্যান্ড ও ওমানের জন্য হিসাব সোজা, জিতলেই নিশ্চিত হবে সুপার টুয়েলভ। পাপুয়া নিউ গিনির স্রেফ জিতলেই হবে না। জিততে হবে বড় ব্যবধান, এরপর অন্য ম্যাচে তাকিয়ে থাকতে হবে ওমানের বড় হারের দিকে।

গ্রুপের শেষ ম্যাচে পাপুয়া নিউ গিনির বিপক্ষে বাংলাদেশকে জিতবে হবে ৩ রানে। তাতেই দ্বিতীয় দল হিসেবে কোয়ালিফাই নিশ্চিত হবে। আবার যদি হেরে যায়, তবে ওমানের হারের দিকে চেয়ে থাকতে হবে। সেক্ষেত্রে অবশ্য বাংলাদেশ যদি ১০ রানে হারে ওমানকে হারতে হবে ১৩ রানে। আর ওমান কোনোভাবে জিততেই তারা যাবে দ্বিতীয় দল হিসেবে।

এ গ্রুপে চ্যাম্পিয়ন হতে পারে স্কটল্যান্ড, ওমান কিংবা বাংলাদেশ। পিএনজিকে হারালে বাংলাদেশের পয়েন্ট হবে চার, স্কটিশদের হারালে ওমানেরও পয়েন্ট হবে চার। প্রথম দুই ম্যাচে জেতা স্কটিশদের পয়েন্টও চার। যার কারণে শেষ ম্যাচে ওমান যদি ১০ রানে জিতে, তাহলে বাংলাদেশের জিততে হবে অন্তত ১৫ রানে। তাতেই গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে মূল পর্বে ভারত, পাকিস্তানের গ্রুপে পড়বে বাংলাদেশ।যেভাবে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হতে পারে বাংলাদেশ
দুই মাস আগে আইসিসি জানিয়েছিল প্রথম পর্বে গ্রুপ ‘এ’ থেকে শ্রীলঙ্কা ও ‘বি’ থেকে বাংলাদেশ রানার্সআপ কিংবা চ্যাম্পিয়ন যাই হোক না কেন দুই দল যাবে দুই গ্রুপে। সে হিসেবে বাংলাদেশের যাওয়ার কথা ছিল ভারত, পাকিস্তান কিংবা নিউজিল্যান্ডের গ্রুপে। কিন্তু হঠাৎ নিজেদের সিদ্ধান্ত বদলে নিয়েছে আইসিসি ফলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন না হলে বাংলাদেশকে যেতে হবে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ডের গ্রুপে। কিন্তু মূল পর্বে যেতে হলে অবশ্যই শেষ ম্যাচে পাপুয়া নিউ গিনির (পিএনজি) সঙ্গে জয়ের বিকল্প নেই।

বিশ্বকাপের শুরুটা হয়েছিল স্কটল্যান্ডের সঙ্গে হেরে। এবার সমীকরণ এমন দাঁড়াচ্ছে যে সেই স্কটল্যান্ডই হয়তো বাদ পড়তে পারে বিশ্বকাপের মঞ্চ থেকে। যদি শেষ ম্যাচে ওমানেরযেভাবে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হতে পারে বাংলাদেশ
দুই মাস আগে আইসিসি জানিয়েছিল প্রথম পর্বে গ্রুপ ‘এ’ থেকে শ্রীলঙ্কা ও ‘বি’ থেকে বাংলাদেশ রানার্সআপ কিংবা চ্যাম্পিয়ন যাই হোক না কেন দুই দল যাবে দুই গ্রুপে। সে হিসেবে বাংলাদেশের যাওয়ার কথা ছিল ভারত, পাকিস্তান কিংবা নিউজিল্যান্ডের গ্রুপে। কিন্তু হঠাৎ নিজেদের সিদ্ধান্ত বদলে নিয়েছে আইসিসি ফলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন না হলে বাংলাদেশকে যেতে হবে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ডের গ্রুপে। কিন্তু মূল পর্বে যেতে হলে অবশ্যই শেষ ম্যাচে পাপুয়া নিউ গিনির (পিএনজি) সঙ্গে জয়ের বিকল্প নেই।

বিশ্বকাপের শুরুটা হয়েছিল স্কটল্যান্ডের সঙ্গে হেরে। এবার সমীকরণ এমন দাঁড়াচ্ছে যে সেই স্কটল্যান্ডই হয়তো বাদ পড়তে পারে বিশ্বকাপের মঞ্চ থেকে। যদি শেষ ম্যাচে ওমানের সঙ্গে হেরে বসে, তাহলে নিশ্চিতভাবে বিদায় নিতে হবে স্কটিশদের। আর অন্য ম্যাচে পিএনজিকে তিন রানে হারাতে পারলেই অন্তত গ্রুপের দ্বিতীয় দল হিসেবে মূল পর্বে পা রাখবে বাংলাদেশ।টানা দুই জয়ে ৪ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষে আছে স্কটল্যান্ড, তাদের রেটিং পয়েন্ট ০.৫৭৫। ২ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে থাকা ওমানের রেটিং ০.৬১৩। সমান পয়েন্ট নিয়ে রান রেটে পিছিয়ে তিনে থাকা বাংলাদেশের রেটিং ০.৫০০। এখনও কোনো জয় না পাওয়া পাপুয়া নিউ গিনি (-১.৮৬৭) রান রেটে বেশ পিছিয়ে।

কাগজে কলমে মূল পর্বের সম্ভাবনা বেঁচে আছে চার দলেরই। বাংলাদেশকে জিতবে হবে ৩ রানে, স্কটল্যান্ড ও ওমানের জন্য হিসাব সোজা, জিতলেই নিশ্চিত হবে সুপার টুয়েলভ। পাপুয়া নিউ গিনির স্রেফ জিতলেই হবে না। জিততে হবে বড় ব্যবধান, এরপর অন্য ম্যাচে তাকিয়ে থাকতে হবে ওমানের বড় হারের দিকে।

গ্রুপের শেষ ম্যাচে পাপুয়া নিউ গিনির বিপক্ষে বাংলাদেশকে জিতবে হবে ৩ রানে। তাতেই দ্বিতীয় দল হিসেবে কোয়ালিফাই নিশ্চিত হবে। আবার যদি হেরে যায়, তবে ওমানের হারের দিকে চেয়ে থাকতে হবে। সেক্ষেত্রে অবশ্য বাংলাদেশ যদি ১০ রানে হারে ওমানকে হারতে হবে ১৩ রানে। আর ওমান কোনোভাবে জিততেই তারা যাবে দ্বিতীয় দল হিসেবে।

এ গ্রুপে চ্যাম্পিয়ন হতে পারে স্কটল্যান্ড, ওমান কিংবা বাংলাদেশ। পিএনজিকে হারালে বাংলাদেশের পয়েন্ট হবে চার, স্কটিশদের হারালে ওমানেরও পয়েন্ট হবে চার। প্রথম দুই ম্যাচে জেতা স্কটিশদের পয়েন্টও চার। যার কারণে শেষ ম্যাচে ওমান যদি ১০ রানে জিতে, তাহলে বাংলাদেশের জিততে হবে অন্তত ১৫ রানে। তাতেই গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে মূল পর্বে ভারত, পাকিস্তানের গ্রুপে পড়বে বাংলাদেশ। সঙ্গে হেরে বসে, তাহলে নিশ্চিতভাবে বিদায় নিতে হবে স্কটিশদের। আর অন্য ম্যাচে পিএনজিকে তিন রানে হারাতে পারলেই অন্তত গ্রুপের দ্বিতীয় দল হিসেবে মূল পর্বে পা রাখবে বাংলাদেশ।টানা দুই জয়ে ৪ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষে আছে স্কটল্যান্ড, তাদের রেটিং পয়েন্ট ০.৫৭৫। ২ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে থাকা ওমানের রেটিং ০.৬১৩। সমান পয়েন্ট নিয়ে রান রেটে পিছিয়ে তিনে থাকা বাংলাদেশের রেটিং ০.৫০০। এখনও কোনো জয় না পাওয়া পাপুয়া নিউ গিনি (-১.৮৬৭) রান রেটে বেশ পিছিয়ে।যেভাবে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হতে পারে বাংলাদেশ
দুই মাস আগে আইসিসি জানিয়েছিল প্রথম পর্বে গ্রুপ ‘এ’ থেকে শ্রীলঙ্কা ও ‘বি’ থেকে বাংলাদেশ রানার্সআপ কিংবা চ্যাম্পিয়ন যাই হোক না কেন দুই দল যাবে দুই গ্রুপে। সে হিসেবে বাংলাদেশের যাওয়ার কথা ছিল ভারত, পাকিস্তান কিংবা নিউজিল্যান্ডের গ্রুপে। কিন্তু হঠাৎ নিজেদের সিদ্ধান্ত বদলে নিয়েছে আইসিসি ফলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন না হলে বাংলাদেশকে যেতে হবে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ডের গ্রুপে। কিন্তু মূল পর্বে যেতে হলে অবশ্যই শেষ ম্যাচে পাপুয়া নিউ গিনির (পিএনজি) সঙ্গে জয়ের বিকল্প নেই।

বিশ্বকাপের শুরুটা হয়েছিল স্কটল্যান্ডের সঙ্গে হেরে। এবার সমীকরণ এমন দাঁড়াচ্ছে যে সেই স্কটল্যান্ডই হয়তো বাদ পড়তে পারে বিশ্বকাপের মঞ্চ থেকে। যদি শেষ ম্যাচে ওমানের সঙ্গে হেরে বসে, তাহলে নিশ্চিতভাবে বিদায় নিতে হবে স্কটিশদের। আর অন্য ম্যাচে পিএনজিকে তিন রানে হারাতে পারলেই অন্তত গ্রুপের দ্বিতীয় দল হিসেবে মূল পর্বে পা রাখবে বাংলাদেশ।টানা দুই জয়ে ৪ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষে আছে স্কটল্যান্ড, তাদের রেটিং পয়েন্ট ০.৫৭৫। ২ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে থাকা ওমানের রেটিং ০.৬১৩। সমান পয়েন্ট নিয়ে রান রেটে পিছিয়ে তিনে থাকা বাংলাদেশের রেটিং ০.৫০০। এখনও কোনো জয় না পাওয়া পাপুয়া নিউ গিনি (-১.৮৬৭) রান রেটে বেশ পিছিয়ে।

কাগজে কলমে মূল পর্বের সম্ভাবনা বেঁচে আছে চার দলেরই। বাংলাদেশকে জিতবে হবে ৩ রানে, স্কটল্যান্ড ও ওমানের জন্য হিসাব সোজা, জিতলেই নিশ্চিত হবে সুপার টুয়েলভ। পাপুয়া নিউ গিনির স্রেফ জিতলেই হবে না। জিততে হবে বড় ব্যবধান, এরপর অন্য ম্যাচে তাকিয়ে থাকতে হবে ওমানের বড় হারের দিকে।

গ্রুপের শেষ ম্যাচে পাপুয়া নিউ গিনির বিপক্ষে বাংলাদেশকে জিতবে হবে ৩ রানে। তাতেই দ্বিতীয় দল হিসেবে কোয়ালিফাই নিশ্চিত হবে। আবার যদি হেরে যায়, তবে ওমানের হারের দিকে চেয়ে থাকতে হবে। সেক্ষেত্রে অবশ্য বাংলাদেশ যদি ১০ রানে হারে ওমানকে হারতে হবে ১৩ রানে। আর ওমান কোনোভাবে জিততেই তারা যাবে দ্বিতীয় দল হিসেবে।

এ গ্রুপে চ্যাম্পিয়ন হতে পারে স্কটল্যান্ড, ওমান কিংবা বাংলাদেশ। পিএনজিকে হারালে বাংলাদেশের পয়েন্ট হবে চার, স্কটিশদের হারালে ওমানেরও পয়েন্ট হবে চার। প্রথম দুই ম্যাচে জেতা স্কটিশদের পয়েন্টও চার। যার কারণে শেষ ম্যাচে ওমান যদি ১০ রানে জিতে, তাহলে বাংলাদেশের জিততে হবে অন্তত ১৫ রানে। তাতেই গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে মূল পর্বে ভারত, পাকিস্তানের গ্রুপে পড়বে বাংলাদেশ।

কাগজে কলমে মূল পর্বের সম্ভাবনা বেঁচে আছে চার দলেরই। বাংলাদেশকে জিতবে হবে ৩ রানে, স্কটল্যান্ড ও ওমানের জন্য হিসাব সোজা, জিতলেই নিশ্চিত হবে সুপার টুয়েলভ। পাপুয়া নিউ গিনির স্রেফ জিতলেই হবে না। জিততে হবে বড় ব্যবধান, এরপর অন্য ম্যাচে তাকিয়ে থাকতে হবে ওমানের বড় হারের দিকে।

গ্রুপের শেষ ম্যাচে পাপুয়া নিউ গিনির বিপক্ষে বাংলাদেশকে জিতবে হবে ৩ রানে। তাতেই দ্বিতীয় দল হিসেবে কোয়ালিফাই নিশ্চিত হবে। আবার যদি হেরে যায়, তবে ওমানের হারের দিকে চেয়ে থাকতে হবে। সেক্ষেত্রে অবশ্য বাংলাদেশ যদি ১০ রানে হারে ওমানকে হারতে হবে ১৩ রানে। আর ওমান কোনোভাবে জিততেই তারা যাবে দ্বিতীয় দল হিসেবে।

এ গ্রুপে চ্যাম্পিয়ন হতে পারে স্কটল্যান্ড, ওমান কিংবা বাংলাদেশ। পিএনজিকে হারালে বাংলাদেশের পয়েন্ট হবে চার, স্কটিশদের হারালে ওমানেরও পয়েন্ট হবে চার। প্রথম দুই ম্যাচে জেতা স্কটিশদের পয়েন্টও চার। যার কারণে শেষ ম্যাচে ওমান যদি ১০ রানে জিতে, তাহলে বাংলাদেশের জিততে হবে অন্তত ১৫ রানে। তাতেই গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে মূল পর্বে ভারত, পাকিস্তানের গ্রুপে পড়বে বাংলাদেশ।র সঙ্গে হেরে বসে, তাহলে নিশ্চিতভাবে বিদায় নিতে হবে স্কটিশদের। আর অন্য ম্যাচে পিএনজিকে তিন রানে হারাতে পারলেই অন্তত গ্রুপের দ্বিতীয় দল হিসেবে মূল পর্বে পা রাখবে বাংলাদেশ।টানা দুই জয়ে ৪ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষে আছে স্কটল্যান্ড, তাদের রেটিং পয়েন্ট ০.৫৭৫। ২ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে থাকা ওমানের রেটিং ০.৬১৩। সমান পয়েন্ট নিয়ে রান রেটে পিছিয়ে তিনে থাকা বাংলাদেশের রেটিং ০.৫০০। এখনও কোনো জয় না পাওয়া পাপুয়া নিউ গিনি (-১.৮৬৭) রান রেটে বেশ পিছিয়ে।

কাগজে কলমে মূল পর্বের সম্ভাবনা বেঁচে আছে চার দলেরই। বাংলাদেশকে জিতবে হবে ৩ রানে, স্কটল্যান্ড ও ওমানের জন্য হিসাব সোজা, জিতলেই নিশ্চিত হবে সুপার টুয়েলভ। পাপুয়া নিউ গিনির স্রেফ জিতলেই হবে না। জিততে হবে বড় ব্যবধান, এরপর অন্য ম্যাচে তাকিয়ে থাকতে হবে ওমানের বড় হারের দিকে।

গ্রুপের শেষ ম্যাচে পাপুয়া নিউ গিনির বিপক্ষে বাংলাদেশকে জিতবে হবে ৩ রানে। তাতেই দ্বিতীয় দল হিসেবে কোয়ালিফাই নিশ্চিত হবে। আবার যদি হেরে যায়, তবে ওমানের হারের দিকে চেয়ে থাকতে হবে। সেক্ষেত্রে অবশ্য বাংলাদেশ যদি ১০ রানে হারে ওমানকে হারতে হবে ১৩ রানে। আর ওমান কোনোভাবে জিততেই তারা যাবে দ্বিতীয় দল হিসেবে।

এ গ্রুপে চ্যাম্পিয়ন হতে পারে স্কটল্যান্ড, ওমান কিংবা বাংলাদেশ। পিএনজিকে হারালে বাংলাদেশের পয়েন্ট হবে চার, স্কটিশদের হারালে ওমানেরও পয়েন্ট হবে চার। প্রথম দুই ম্যাচে জেতা স্কটিশদের পয়েন্টও চার। যার কারণে শেষ ম্যাচে ওমান যদি ১০ রানে জিতে, তাহলে বাংলাদেশের জিততে হবে অন্তত ১৫ রানে। তাতেই গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে মূল পর্বে ভারত, পাকিস্তানের গ্রুপে পড়বে বাংলাদেশ।ওমানের সঙ্গে হেরে বসে, তাহলে নিশ্চিতভাবে বিদায় নিতে হবে স্কটিশদের। আর অন্য ম্যাচে পিএনজিকে তিন রানে হারাতে পারলেই অন্তত গ্রুপের দ্বিতীয় দল হিসেবে মূল পর্বে পা রাখবে বাংলাদেশ।টানা দুই জয়ে ৪ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষে আছে স্কটল্যান্ড, তাদের রেটিং পয়েন্ট ০.৫৭৫। ২ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে থাকা ওমানের রেটিং ০.৬১৩। সমান পয়েন্ট নিয়ে রান রেটে পিছিয়ে তিনে থাকা বাংলাদেশের রেটিং ০.৫০০। এখনও কোনো জয় না পাওয়া পাপুয়া নিউ গিনি (-১.৮৬৭) রান রেটে বেশ পিছিয়ে।

কাগজে কলমে মূল পর্বের সম্ভাবনা বেঁচে আছে চার দলেরই। বাংলাদেশকে জিতবে হবে ৩ রানে, স্কটল্যান্ড ও ওমানের জন্য হিসাব সোজা, জিতলেই নিশ্চিত হবে সুপার টুয়েলভ। পাপুয়া নিউ গিনির স্রেফ জিতলেই হবে না। জিততে হবে বড় ব্যবধান, এরপর অন্য ম্যাচে তাকিয়ে থাকতে হবে ওমানের বড় হারের দিকে।

গ্রুপের শেষ ম্যাচে পাপুয়া নিউ গিনির বিপক্ষে বাংলাদেশকে জিতবে হবে ৩ রানে। তাতেই দ্বিতীয় দল হিসেবে কোয়ালিফাই নিশ্চিত হবে। আবার যদি হেরে যায়, তবে ওমানের হারের দিকে চেয়ে থাকতে হবে। সেক্ষেত্রে অবশ্য বাংলাদেশ যদি ১০ রানে হারে ওমানকে হারতে হবে ১৩ রানে। আর ওমান কোনোভাবে জিততেই তারা যাবে দ্বিতীয় দল হিসেবে।

এ গ্রুপে চ্যাম্পিয়ন হতে পারে স্কটল্যান্ড, ওমান কিংবা বাংলাদেশ। পিএনজিকে হারালে বাংলাদেশের পয়েন্ট হবে চার, স্কটিশদের হারালে ওমানেরও পয়েন্ট হবে চার। প্রথম দুই ম্যাচে জেতা স্কটিশদের পয়েন্টও চার। যার কারণে শেষ ম্যাচে ওমান যদি ১০ রানে জিতে, তাহলে বাংলাদেশের জিততে হবে অন্তত ১৫ রানে। তাতেই গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে মূল পর্বে ভারত, পাকিস্তানের গ্রুপে পড়বে বাংলাদেশ।