রক্তই হোক আত্মার বাঁধন ,একের রক্ত অন্যের জীবন

13

গতকাল ১৪ জুন বিশ্ব রক্তদাতা দিবস উপলক্ষে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের শাহ আলম বীর উত্তম অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত হল সন্ধানী চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ইউনিটের ‘রক্তদাতা সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠান, ২০২২’ ‘রক্তদান সংঘবদ্ধতারই প্রকাশ, এ কাজে যুক্ত হোন, জীবন বাঁচান’ এই স্লোগানে । এতে সর্বোচ্চ ৯০ বার রক্তদানের জন্য মো. নাজমুল ইসলামকে সর্বোচ্চ রক্তদাতার সম্মাননা তুলে দেওয়া হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. ইসমাইল খান। বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম আহসান, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. সাহেনা আকতার, উপাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মো. হাফিজুল ইসলাম, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ইউরোলোজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান এবং সন্ধানী চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ইউনিটের উপদেষ্টা অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ মনোয়ার-উল-হক। এছাড়া আরো উপস্থিত ছিলেন সন্ধানী চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ইউনিটের আজীবন সদস্য অধ্যাপক ডা. ইমরান বিন ইউনূস, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের রক্ত পরিসঞ্চালন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ডা. তানজিলা তাবিব চৌধুরীসহ চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষকগণ, সন্ধানী চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ইউনিটের উপদেষ্টা, সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, এক ঝাঁক সন্ধানীয়ানসহ চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীর একাংশ।
রক্তদাতা সম্মাননা অনুষ্ঠানের বক্তব্যে অতিথিগণ রক্তদানের গুরুত্ব, গত ৪ জুন সীতাকুণ্ডে বিএম ডিপোর ভয়ংকর অগ্নিকাণ্ডে সন্ধানীর অক্লান্ত পরিশ্রমের জন্য ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান। ইউরোলজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান এবং সন্ধানী চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ইউনিটের উপদেষ্টা অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ মনোয়ার-উল-হক বলেন, একসময় সন্ধানীতে রক্তের জন্য হন্যে হয়ে মানুষ খুঁজতে হতো। কিন্তু সীতাকুণ্ড ট্রাজেডিতে আগ্রহী মানুষ রক্ত দেওয়ার জন্য ছুটে এসেছেন, এইটা খুব বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। অনুষ্ঠানের সমাপনী বক্তব্যে সন্ধানী চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ইউনিটের সভাপতি আমজাদ হোসেন বাবু সকলকে ধন্যবাদ জানান যারা সবসময় রক্ত দিয়ে কিংবা বিভিন্নভাবে সন্ধানীর পাশে থেকে সন্ধানীর কার্যক্রমে সাহায্য করেছেন এবং করে যাচ্ছেন।
রক্তদাতা সম্মাননা অনুষ্ঠানে ২০২০-২০২১ সালে পজিটিভ ব্লাড গ্রুপধারী যাঁরা তিন বা ততোধিকবার, নেগেটিভ ব্লাড গ্রুপধারী যাঁরা ২ বা ততোধিকবার এবং সর্বমোট সর্বোচ্চ ১০/২০/৩০/৪০/৫০/৬০/৭০/৯০ বার সন্ধানীতে রক্তদান করেছেন তাদের সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।
এ সময় বক্তারা বলেন, একজন রক্তদাতা অমূল্য রক্তদান বাঁচাতে পারে একটা জীবন, একটা পরিবারকে। এমন মহৎ কাজের যথাযথ পুরস্কার দেওয়ার ক্ষমতা হয়তো আমাদের নেই। তবে সন্ধানীর তরফ থেকে আমাদের সামান্য প্রচেষ্টা আপনাদের সম্মান প্রদর্শনের যাতে আপনাদের দেখে এগিয়ে আসবেন আরো অনেক মানুষ যেনো আগামীতে একটি প্রাণও ঝরে না পড়ুক রক্তের অভাবে। তাই আজ বিশ্ব রক্তদাতা দিবসে আমাদের সকলের মূলমন্ত্র হোক ‘একের রক্ত অন্যের জীবন, রক্তই হোক আত্মার বাঁধন’।

প্রেস বিজ্ঞপ্তি।